বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭, ২০১৯
প্রথমপাতা > অন্যান্য > ফেসবুক অটো পোস্টিং টেস্ট: ভেঙে গেলো জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট

ফেসবুক অটো পোস্টিং টেস্ট: ভেঙে গেলো জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দলগুলোর মধ্যে একমাত্র মাহামুদুর রহমান মান্নার নাগরিক ঐক্য ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ৯টি আসনে সন্তুষ্ট হয়ে নির্বাচনের মাঠে চলে গেছে। এবং বিএনপির সঙ্গেই নাগরিক ঐক্য কাজ করে যাবে বলে মান্না জানিয়ে দিয়েছেন। ঐক্যফ্রন্টের আরেকজন নেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুর। তিনি কোনো দলের মধ্যে না থাকলেও এবার ধানের শীষ প্রতীক পেয়ে নির্বাচন করছেন। এদিকে ঐক্যফ্রন্টের জেএসডি এবং গণফোরামের সঙ্গে বিএনপির কোনো সমঝোতা হয়নি। এই দুটি দলই বিএনপির প্রতি অত্যন্ত অসন্তুষ্ট এবং ক্ষুব্ধ বলে ঐ দলদুটির নেতাদের সূত্রেই জানা গেছে।
মাহামুদুর রহমান মান্না ঐক্যফ্রন্টের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে বিএনপির সঙ্গে গাটছড়া বাধায় তারা ক্ষোভও প্রকাশ করেছেন। এই অবস্থায় এখন আপাতত জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কোনো কর্মসূচি বা বৈঠক নেই। এমনকি একসঙ্গে যে নির্বাচনী ইশতেহার করার কথা ছিল, সে কাজও থমকে গেছে। ভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, গণফোরাম এবং জেএসডি অভিযোগ করছে যে ঐক্যফ্রন্ট করে শুধু বিএনপিই লাভবান হয়েছে। তাই এই দুটি দল এখন বিএনপিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে আর আগ্রহী নয়। জেএসডির একজন নেতা বলেছেন, তারা আশা করেছিলেন যে ঐক্যফ্রন্টের শরীকদের বিএনপি সম্মানজনক আসন দেবে এবং ঐক্যবদ্ধ হয়ে নির্বাচন করবে। কিন্তু বিএনপি যে নূন্যতম আসন দিয়েছে তা সম্মানজনক নয়, বরং অপমানজনক। গণফোরামও একই রকম মন্তব্য করেছে।

ফলে যেসব নেতা ধানের শীষ প্রতীকের আশায় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিয়েছিল, তারা এখন হতাশায় ভুগছে। শেষ পর্যন্ত এই হতাশা থেকে এবং আসন ভাগাভাগি নিয়ে যদি সমঝোতা না হয় তবে জাতীয় ঐক্যফন্ট হয়তো ভাঙনের মুখেই পড়বে। স্বল্পতম সময়ের মধ্যে গঠিত হয়ে একটি চমক সৃষ্টি করে আবার স্বল্পতম সময়েই দলটি ভেঙে গেলে রাজনীতিতে এটি হবে একটি বড় প্রহসন।

ফেসবুক থেকে মন্তব্য

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।